2018-01-25 11:21:02a

হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ‘হস্ত ও কারুশিল্প’ নীতিমালা প্রণয়ন হবে

আইএনবিনিউজ২৪.কম: ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের বিকাশে আবহমান বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে ‘হস্ত ও কারুশিল্প’ নীতিমালা প্রণয়নের পাশাপাশি যুগোপযোগী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

পহেলা বৈশাখে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন-বিসিক ও বাংলা একাডেমি’র যৌথ উদ্যোগে ১০ দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা জানান মন্ত্রী।

বৈশাখী মেলার প্রচলন গ্রাম থেকে শুরু হলেও এর আয়োজন আর ব্যাপ্তি এখন ছুঁয়ে গেছে নাগরিক জীবনকেও। লোকজ এই উৎসব শুধু বাংলার ঐতিহ্য আর সংস্কৃতিকেই তুলে ধরে না, এর পাশাপাশি এ মেলা ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পীদের এনে দেয় তাদের হাতে তৈরি পণ্য বিক্রির সুযোগও।

বৈশাখী এ মেলায় বুটিক শিল্পের পোশাক, প্রাণবন্ত টেরাকোটা, সৌখিন ল্যাম্প, খেলনা-তৈজসপত্রের পাশাপাশি পাওয়া যাচ্ছে গ্রামীণ মানুষের হাতে তৈরি মানসম্পন্ন হারবাল পণ্যও।

এ সময় একজন হারবাল পণ্য বিক্রেতা সময় সংবাদের কাছে তার পণ্যের গুণাগুণ তুলে ধরেন।

নাগরিক জীবনে বাঙালিয়ানার ছোঁয়ায় এমন আয়োজনে কমতি নেই দর্শনার্থীদেরও। একজন দর্শক বলেন, ‘এখানকার গ্রামীণ পণ্যগুলো সাধারণত গ্রামে তৈরি হয় এবং সেখানেই ব্যবহৃত হয়। শহরে এগুলো পৌঁনে না। কিন্তু মেলা থেকে আমরা এগুলো সংগ্রহ করতে পারছি।’

আর ঐতিহ্যবাহী এ বৈশাখী মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী জানালেন, মসলিনসহ আবহমান বাংলার হারিয়ে যাওয়া কারুশিল্পের সব ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে নীতিমালা প্রণয়নসহ নেয়া হচ্ছে নতুন নতুন প্রকল্প।

মেলায় কারুশিল্পীদের আরও উৎসাহ দিতে ৬ জন কারুশিল্পীকে কারুরত্ন ও কারুগৌরব পুরস্কার ও সম্মাননা দেয়া হয়।

 

আইএনবি / এম রহমান /####